General

নববর্ষ  ২০২০  সুন্দরবন ভ্রমণ

আকর্ষণীয় ভ্রমণ বৃত্তান্ত, এম ভি অবসর জাহাজে করে বাঘেদের ভূমি সুন্দরবনে দুঃসাহসিক অভিযানঃ-

পৃথিবীর বৃহত্তম গরান বনভূমিটি আশ্চর্য রকম প্রাণী ও ফুলের জীব বৈচিত্র্য ধারণ করে আছে, যার মধ্যে রয়েছে সম্ভবত সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অবশিষ্ট রয়েল বেঙ্গল টাইগার, বিপন্ন এস্টুয়ারাইন কুমির, গঙ্গা নদীর ডলফিন এবং বিস্ময়কর পাখিদের নানান জাত। আমাদের দুঃসাহসিক অভিযানে যোগদিন এবং বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সম্পদের আশ্চর্যতা অন্বেষণ করুন। 

বিস্তারিত ভ্রমণ বৃত্তান্ত 

৩০ ডিসেম্বারঢাকা থেকে জাহাজে উঠে সুন্দর বনের দিকে যাত্রা শুরুঃ   

খুব সকাল বেলা (আনুমানিক ৭ টার দিকে) আপনাকে গুলশান দুই থেকে নারায়ণগঞ্জ/ ডেমরা পৌঁছে দেওয়া হবে জাহাজে (এম ভি অবসর) উঠার জন্য। ডেমরায় পৌঁছে জাহাজে উঠার আনুসঙ্গিক ক্রিয়া কর্ম শেষ হবার পর জাহাজ দক্ষিণে যাত্রা শুরু করবে এবং রাতের জন্য নোঙর করার আগ পর্যন্ত কয়েক ঘণ্টা যাত্রা চলতে থাকবে। রাতের জন্য একটা সুবিধা জনক স্থানে নোঙর করা হবে।

৩১ ডিসেম্বারসুন্দর বনের বিস্ময়কর জীব বৈচিত্র্য অন্বেষণঃ

খুব সকালে জাহাজ তার পুনরায় যাত্রা শুরু করবে এবং সারাদিন দেশের প্রধানতম নদী পথ সমূহ দিয়ে যাত্রা চালিয়ে যাবে। ভাগ্য খুব সহায় হলে আপনি কয়েক ঝলক নদীর তাজা পানির বিলুপ্তপ্রায় ডলফিন ও দেখতে পারেন। আশা করা যায় জাহাজ সন্ধ্যার পর মংলায় পৌঁছাবে। পথ প্রদর্শক আপনাকে কারামজাল দেখাতে নিয়ে যেতে পারে।

১ জানুয়ারি অন্বেষণ চলবে – 

খুব ভোরে জাহাজ তার যাত্রা শুরু করবে এবং সকাল ১১ ঘটিকায় কচিখালিতে পৌঁছে যাবে। পথ প্রদর্শক আপনাকে আদিম সৈকত দিয়ে হাটতে নিয়ে যাবে বিশাল বঙ্গপো সাগরকে সামনে রেখে। আপনি চাইলে সাগরে সাতার ও কাটতে পারেন। বিকেল বেলায় আপনাকে সরু নদী পথ দিয়ে একটি নিশ্চুপ নৌকা ভ্রমনে নিয়ে যাওয়া হবে যাতে করে আপনি কিছু বন্যপ্রাণী দেখতে পারেন। বিকাল ৪ ঘটিকায় আমরা কটকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবো। রাতের বেলা জাহাজেই কাটাতে হবে।

২ জানুয়ারিঢাকার উদ্দেশ্যে ফিরতি যাত্রাঃ-

এই দিন আপনাকে আরো অনেক গুলো ক্রিয়া কলাপ প্রদান করা হবে যার মধ্যে থাকতে পারে পূর্বের চেয়ে অধিকতর নিশ্চুপ নৌকা ভ্রমণ এবং ঘন গরান বনভূমির মধ্যে দিয়ে হাটতে যাওয়া। জাহাজে পৌঁছানোর পর জাহাজ তার ফিরতি যাত্রা শুরু করবে। একটি সুবিধাজনক স্থান দেখে নোঙর করে জাহাজ যাত্রা বিরতি দিবে রাতের জন্য। 

৩ জানুয়ারিফিরতি যাত্রাঃ-

জাহাজ পুনরায় তার যাত্রা শুরু করবে ঢাকার উদ্দেশ্যে এবং সন্ধ্যা নাগাদ পৌঁছে যাবে। নারায়ণগঞ্জ/ডেমরায় পৌঁছে জাহাজ থেকে নামার পর আপনাকে গুলশান দুই এ পৌঁছে দেওয়া হবে।

মূল্য প্রতি জনে ২০,০০০ টাকা

বিদেশীদের প্রতি জনের বনের অনুমতির জন্য লাগবে ৫১০০ টাকা।  

উপরে উল্লেখিত মুল্যের মাঝে যা অন্তর্ভুক্ত থাকবেঃ

১। ভ্রমণে জাহাজে থাকার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে প্রথম দিনের সকালের নাস্তা থেকে পঞ্চম দিনের রাতের খাবার পর্যন্ত অন্তর্গত থাকবে। 

২। বনের অনুমতি পত্র এবং ফি বাংলাদেশীদের জন্য।

৩। সুন্দরবন সন্মন্ধে অভিজ্ঞ পথ প্রদর্শক। 

দয়া করে মনে রাখবেন জাহাজে কোন প্রকার মদ জাতীয় পানীয় সরবরাহ করা হবে না, কিন্তু ইচ্ছা করলে আপনারা সাথে করে নিয়ে আসতে পারেন। টাকার বিনিময়ে কোমল পানীয় পাওয়া যাবে।

আপনার নিজের সুবিধার জন্য,  আমরা আপনাকে শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় জিনিষ নেবার  জন্য অনুরোধ করছি। যাইহোক, আমরা আপনাকে নিম্নে বর্ণিত দ্রব্যাদি বহনের জন্য অনুরোধ করছি, টর্চ লাইট/ গামছা/ ছাতা/ দূরবীক্ষণ যন্ত্র/ আরামদায়ক কাপড়/ ক্যামেরা এবং ফিল্ম/ মশার কয়েল/ সানট্যান লোশন/ আরামদায়ক জুতো/ সাতার কাটার সরঞ্জামাদি/ পড়ার বই/ বহন উপযোগী খেলার সরঞ্জামাদি।        

Available departures

Unfortunately, no places are available on this tour at the moment

Special Upcoming Tours

Special Upcoming ToursRead more

Sundarbans Magical Mangroves

Sundarbans  Magical MangrovesThe Sundarbans Forest is a diverse and complex ecosystem, influenced by fresh-water inflow, proximity to the Bay of Bengal and human activities. In the southeastern part, the biodiversity is highest. Due to open sea-facing meadows, wildlife visibility is best here. Therefore most of our tours visit Katka and Kochikhali in the South East Sanctuary.   Read more